বার বার প্রস্রাব পেলে এই ৬ খাবার বর্জন করুন


বার বার প্রস্রাব পেলে- এই সমস্যা হয় সেই খাবার গুলো ডায়েট থেকে বাদ দিলে বা কম খেলে ব্লাডারকে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে রাখা যেতে পারে।

অনেকেই আছেন যাদের বারবার প্রস্রাব পায়। এবং বাধ্য হয়েই টয়লেটে ছুটতে হয়। অনেকে আবার এটাকে ডায়াবেটিসের উপসর্গ মনে করে ডাক্তারের কাছে ছুটেন। ডাক্তার হাসিমুখে বলে দেন যে এটা সুগারের কোন সমস্যা নয়।

তবে কি? চিকিত্সকদের মতে, ডায়াবেটিস ছাড়াও ওভারঅ্যাকটিভ ব্লাডার (ওএবি) হওয়ার কারণে এমনটা হতে পারে। যদিও ওএবি সমস্যার কোনও বিশেষ ডায়েটের কথা চিকিত্সকরা বলছেন না।

তাদের পরামর্শ, কিছু খাবার ব্লাডারে অস্বস্তি বাড়ায় যার ফলে এই সমস্যা হয় সেই খাবারগুলো ডায়েট থেকে বাদ দিলে বা কম খেলে ব্লাডারকে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে রাখা যেতে পারে।

দেখে নিন কোন খাবারগুলো আছে সেই তালিকায় :

০১. কফি: সকালে উঠে কফি থান? যদি আপনার ব্লাডার ইনফেকশনের সমস্যা থাকে তাহলে এই অভ্যাস ছাড়ুন। কফির মধ্যে থাকা ক্যাফেইন ব্লাডারে অস্বস্তি বাড়ায়।

০২. অ্যালকোহল: মদ্যপান করলে যে বেশি প্রস্রাব পায় তা যারা নিয়মিত মদ্যপান করেন তারা করেন। অ্যালকোহল যে শুধু পেটে অস্বস্তি হয় তা নয়, ব্লাডারেও অস্বস্তি তৈরি করে। তাই সংক্রমণের প্রবণতা থাকলে অ্যালকোহল থেকে দূরে থাকুন।

০৩. সোডা: ব্লাডার ফুলে যাওয়া, মূত্রনালির সংক্রমণ বা ওএবি থাকলে সোডা খেলে সমস্যা আরও বেড়ে যায়। তাই কার্বনেটেড বা সাইট্রাস সোডা থেকে সম্পূর্ণ দূরে থাকুন। তার বদলে যতটা সম্ভব জল খান।

০৪. অ্যাসিডিক ফল: শরীরের পক্ষে ফল খাওয়া ভাল। কিন্তু যদি আপনার ব্লাডারের সমস্যা থাকে তাহলে অ্যাসিডিক ফল মূত্রনালির সংক্রমণ বাড়াতে পারে। সে ক্ষেত্রে কমলালেবু, আঙুর, লেবু, টোম্যাটো, পিচ, আপেল, আনারস থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিত্সকরা।

০৫. স্পাইসি খাবার: যদি আপনার পিজায় এক্সট্রা চিলি ফ্লেকস বা চিকেন কারিতে অতিরিক্ত ঝাল খেতে ভাল লাগে তবে আপনার মূত্রনালিতে সংক্রমণ থাকলে একটু সাবধান থাকতে হবে। কারণ ঝাল, মশলাদার খাবার ব্লাডারে অস্বস্তি তৈরি করে।

০৬. কৃত্রিম সুইটেনার: ক্যালরির পরিমাণ কমানোর জন্য অনেকেই খাবারে চিনির বদলে কৃত্রিম সুইটেনার যোগ করেন। তবে চিকিত্সকরা জানাচ্ছেন, যদি মূত্রনালিতে সংক্রমণ থাকে তাহলে কৃত্রিম সুইটেনার থেকে দূরে থাকুন। এতে সংক্রমণ বাড়তে পারে।

এবার মুখ খুললেন ঐশ্বরিয়া, যা বললেন যুবকের মা দাবির বিষয়ে
বলিউড তারকা ঐশ্বরিয়া রায় বচ্চনকে নিজের মা দাবি করেছেন সঙ্গীত কুমার নামের এক যুবক। তিনি বলেন, ‘১৯৮৮ সালে আইভিএফ (টেস্ট টিউব বেবি) পদ্ধতিতে লন্ডনে জন্ম হয়েছে আমার। আর আমার মায়ের নাম ঐশ্বরিয়া রায়।’ ২৯ বছর বয়সী এই যুবকের মন্তব্যকে ঘিরে আলোচনা তৈরি হয়েছে বলিউড পাড়ায়। বিষয়টি নিয়ে ঐশ্বরিয়ার মন্তব্য জানার জ

এবার খুব কাছের মানুষের মুখোশ খুলে দিলেন প্রভা, যা বললেন
‘২০১৭ সালে আমার আশেপাশের কিছু নেগেটিভ মানুষের মুখোশটা খুলে গেছে। আমি ওদের আসল রূপটা চিনতে পেরেছি। অথচ আমি জানতাম, ওরা আমার জীবনের জন্য পজিটিভ। পরে উপলব্ধি করেছি ওরা আমার লাইফের জন্য হার্মফুল। নতুন বছরে ওদের কাছ থেকে মুক্তি পেয়েছি-এটাই আমার জন্য অনেক ভালোলাগার।’ এই কথাগুলো বলেছেন ছোটপর্দার আলোচিত অভি

কিন্তু সৎ, সাহসী তারানা হালিম তার সিদ্ধান্তে ছিলেন অনড়; আর যে কারণে…
তারানাকে সরিয়ে দেয়ায় সরকারের ভিতরে বাইরে, নানা মহলে নানা প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। সকাল-রাত্রি কাজ, সততা, সাহস ও দক্ষতার নজিরবিহীন দৃষ্টান্ত স্থাপন করার পরেও তাকে কেনো সরে যেতে হলো এ নিয়ে নানা প্রশ্নের জন্ম হচ্ছে। বলা হচ্ছে, সরকারি দলের নেপথ্যে মহাশক্তিধর এক ব্যক্তি, দুই একজন নেতা, প্রতিমন্ত্রী মিলেই

আমার স্ত্রী প্রাইমারি টিচার- রাতে ডিনারের শেষে আমার স্ত্রী ….
স্ত্রী প্রাইমারি টিচার – আমার স্ত্রী প্রাইমারি টিচার। রাতে ডিনারের শেষে আমার স্ত্রী ক্লাস ওয়ানের খাতা দেখছিলো। খাতা দেখতে দেখতে আমার মিসেসের চোখ দুটো ছলছল করে করে উঠেছে। আমি কাছেই বসে টিভি দেখছিলাম। মিসেসের দিকে নজর যাওয়াতে দেখি আমার স্ত্রী চোখের জল মুছছে। আমি অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করলাম কি হয়েছে কাঁ
Comments

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*